মৃত্যু যেকোনও সময় হতে পারে, কিন্তু হার মানবো না: প্রধানমন্ত্রী

সময়: 11:39 am - June 15, 2020 | | পঠিত হয়েছে: 55 বার
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন আজ

ঢাকা: মহামারি করোনা ভাইরাস মোকাবিলাকে ‘যুদ্ধ’ আখ্যা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘মৃত্যুর ভয়ে ভীত হয়ে করোনার কাছে হার মানতে হবে, এটা তো হবে না। আমি হার মানবো না। মৃত্যু তো হবেই। মৃত্যু যেকোনও মুহূর্তে যেকোনও কারণে হতে পারে। কিন্তু ভয়ে ভীত হয়ে অদৃশ্য শক্তির কাছে হার মানতে হবে, তা হবে না।’

সোমবার (১৫ জুন) স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ) এর ৩৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের এই দুর্যোগে হার মানলে চলবে না। বরং আত্মবিশ্বাস নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘করোনার ভয়ে সারা বিশ্ব আজ স্থবির। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে মৃত্যু। করোনার চলমান এই দুর্যোগে হার মানলে চলবে না।’

তাঁর সরকারের সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত ও যথাযথ পদক্ষেপের কারণে মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে উন্নত অনেক দেশের তুলনায় বাংলাদেশে আক্রান্ত, মৃত্যুর হার অনেক কম বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

সরকারপ্রধান বলেন, ‘আমাদের এই মুহূর্তের সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার এই প্রাণঘাতি ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিহত করা এবং অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখা। দুর্যোগ মোকাবিলায় আমি ৩১ দফা নির্দেশনা দিয়েছে এবং ব্যক্তিগতভাবে মাঠপর্যায়ে এর বাস্তবায়ন তদারকি করছি।’

তিনি বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে যে গভীর আঁধারে নিমজ্জিত এই পৃথিবী, সে আঁধার ভেদ করে আমরা নিশ্চয়ই বেরিয়ে আসবো এক নতুন দিনের সূর্যালোকে। মনে রাখতে হবে, দুর্যোগেই হয় মনুষ্যত্বের পরীক্ষা। এই ভাইরাস মোকাবিলাও একটি যুদ্ধ। এই অদৃশ্য শক্তির বিরুদ্ধে আমরা জয়লাভ করবোই, ইনশাআল্লাহ।’

তিনি বলেন, ‘করোনাজনিত বৈশ্বিক মহামারির কারণে সমগ্র বিশ্বই আজ বিপর্যস্ত। এই মহামারি গোটা বিশ্বের অর্থনীতি, সমাজব্যবস্থা, রাজনীতিসহ সকল বিষয়ে ব্যাপক প্রভাব ফেলেছে। আমাদের দেশও এই বিপর্যয় থেকে মুক্ত নয়। এই কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আমরা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছি।’

এসময় তিনি এসএসএফ সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, সুযোগ্য নেতৃত্বে সঠিক দিকনির্দেশনা এবং এই বাহিনীর প্রত্যেক সদস্যের পেশাদারিত্ব ও আন্তরিকতার মাধ্যমে এসএসএফের উত্তরোত্তর উন্নতি অব্যাহত থাকবে।’

এই বিভাগের আরও খবর